দেশে যা চলছে তার মধ্যে কি ভাল লাগার মতো কিছু আছে?

শুভেন্দু সরকার

 


দেশের কথা বলতে বললে বলব কিছু না বলাই ভাল। কারণ, এই যা দুটো সরকার চলছে দেশে আর আমাদের এই রাজ্যে তাদের মধ্যে ভাল লাগার মতো কিছু আছে? আপনারা আমায় ধরিয়ে দিতে পারবেন যে অমুক জিনিসটা ভাল? সব দুর্নীতির ডিপো, দিনরাত মিথ্যা কথা বলে। কী ভাল লাগবে এদের? আমি সরকার বদল করতে চাই। আমার মনে হয় যা চলছে, তার চাইতে আর খারাপ কিছু হয় না। তাই বদল করে যে-ই আসুক, উন্নতি হবেই

 

আমি একজন মরশুমি ব্যবসায়ী। বিভিন্ন পালাপার্বণে বিভিন্ন জিনিসের ব্যবসা করি। আমাদের এখানে, মানে এই হাওড়ার বক্সিবাগানে, রাস্তার ধারে ত্রিপল খাটিয়ে অস্থায়ী দোকান বানিয়ে নিই। কোনও পরব উপলক্ষে হয়তো ১৫-২০ দিন বসলাম। তারপর গুটিয়ে নিয়ে আবার পরের পরবের প্রস্তুতি নিই। এরকম করে মাসে ১১-১২ হাজার টাকা রোজগার হয়। আমার ছোট ফ্যামিলি। আমি, আমার স্ত্রী আর মেয়। এই তিনজন। সংসার আমার রোজগারের টাকাতেই চলে। আমার স্ত্রী গৃহবধূ, টাকা রোজগারের কোনও কাজ করে না। তবে কোনও কোনও সময়ে যখন আমার ব্যবসার চাপ বাড়ে তখন ও আমায় সাহায্য করে।

ধার আমাকে কখনও করতে হয় না। যা রোজগার করি, মোটামুটি চালিয়ে নিতে পারি। ব্যবসার থেকে আয় খুব বেশি কিছু বাড়েনি। বছর দুয়েক আগেও ওরকম ১০-১১ হাজার টাকাই হত। তবে গত দু-বছর আমি ব্যবসায় কিছু বৈচিত্র্য আনার চেষ্টা করেছি। তাতে ব্যবসাটা একটু ভাল হয়েছে। বৈচিত্র্য বলতে কখনও গোপালের জামা, দোলে রং-আবির, কালীপুজোয় বাজি, এমনি পুজোআচ্চার সময়ে নানারকম ফল— এইরকম আর কী।

এই যে এগারো হাজার কি বারো হাজার আয় হয় বলছি, এ তো আর সবসময়ে এই একইরকম হয় না। কোনও মরশুমে বেশি হয়, কখনও কম হয়। সব মিলিয়ে গড়ে ওইরকম দাঁড়ায়। তবে ব্যবসাটা আমি বারো মাসই করি।

 

পড়ুন, ইলেকশন এক্সপ্রেস ২০২৪

 

আরও কিছু ভাবতে হবে। আয় বাড়াতে হবে। সংসার খরচ তো বাড়ছে। জিনিসপত্রের দাম, মেয়ে বড় হচ্ছে, ওর পড়াশোনার খরচ। আমার মাসের খরচার মধ্যে এই খাতেই সবচেয়ে বেশি টাকা যায়। মেয়ের পড়াশোনা। মেয়েকে লেখাপড়া শিখিয়ে ইঞ্জিনিয়ার করা আমার লক্ষ্য। আমার সব দাদার ছেলেমেয়েরা ইঞ্জিনিয়ার।

কিন্তু দেশের কথা বলতে বললে বলব কিছু না বলাই ভাল। কারণ, এই যা দুটো সরকার চলছে দেশে আর আমাদের এই রাজ্যে তাদের মধ্যে ভাল লাগার মতো কিছু আছে? আপনারা আমায় ধরিয়ে দিতে পারবেন যে অমুক জিনিসটা ভাল? সব দুর্নীতির ডিপো, দিনরাত মিথ্যা কথা বলে। কী ভাল লাগবে এদের? ভোট আসছে, ভোট তো দেব। এ আমার গণতান্ত্রিক অধিকার। আর আমি সরকার বদল করতেও চাই। আমার মনে হয় যা চলছে, তার চাইতে আর খারাপ কিছু হয় না। তাই বদল করে যে-ই আসুক, উন্নতি হবেই। শিক্ষার মান বাড়বে, রোজগারের সুযোগ বাড়বে।

আপাতত এগুলোই চাই— ব্যবসাটা বাড়ুক, মেয়েটা ইঞ্জিনিয়ার হোক, আর দেশে একটা ভাল সরকার আসুক।

 


*সাক্ষাৎকারের ভিত্তিতে অনুলিখিত। চার নম্বর প্ল্যাটফর্মের পক্ষে সাক্ষাৎকার নিয়েছেন দেবাশিস মিথিয়া

 

About চার নম্বর প্ল্যাটফর্ম 4725 Articles
ইন্টারনেটের নতুন কাগজ

Be the first to comment

আপনার মতামত...