চারটি কবিতা

রাজেশ গঙ্গোপাধ্যায়

 

উচ্চারণ

ভেবে রাখা সবকিছু বলা হয়ে গেলে
শিশিরপাতের অবশিষ্ট কারণ পর্যন্ত বেঁকে যায় মোহ
স্থবিরতা পেরোনোর পাঠক্রমে তর্জমা হয়ে ওঠে স্মৃতি
নৈঃশব্দ মুখর হয়ে ওঠে… ধ্রুবকে রেহাই পায় ত্রুটিবিচ্যুতি

ভালোবাসাটির কাছে এসে থামে নিবিড় স্বনন।

 

ব্রত

করতলে ফুটে ওঠে গর্ভযাপনের খতিয়ান

দূরত্বের পরিশোধ হতে থাকে ভ্রান্ত সাঁকোয় অবিরাম
যতিচিহ্নহীন লেখাটিও ভেসে ওঠে অবতল বোধে
অলঙ্ঘ্যের ধারণা ব্যেপে আসে সম্পর্কের আনাচেকানাচে
এইটুকু তিথি পালনীয় হয়ে ওঠে

 

লব্জ

সুদূর অবধি যাওয়া আসলে কিনার অভিমুখে
প্রতিফলনের ছলে আনতি ফুরিয়ে ফেলার প্রক্রিয়া
থৈ থৈ চাঁদমারি… কে আবেশ পার হয়ে যায়
একাকী বৃত্তে রাখা ব্রজবুলি ভরে আসে সমীহর ধুন

অভ্যাস মিশে আসে প্রাত্যহিকতায়

 

ফেরা

পুনশ্চতে রাখা শব্দরা আত্মায় রেখেছে আঙুল
বেলাশেষ ঢেউ বয়ে যেতে যেতে বলে গেল
বালিয়াড়ি সবকিছু জানে… মদগর্বী অস্ত্রে জমে ওঠে আলস্যরেণু
এর পর বারিষঋতুর কাছে দ্রুতি জিম্মা রেখে

পুরনো স্মৃতির কাছে ফিরে আসে মেলানকলির বালিকারা

 

 

 

About চার নম্বর প্ল্যাটফর্ম 2769 Articles
ইন্টারনেটের নতুন কাগজ

Be the first to comment

আপনার মতামত...