পৌলমী গুহ

হুতাশনের রাত

 

১.

অস্থির নিশাচর তুমি
জড়াও, আকুল নাগপাশে।
ডানায় লেগে থাকে
কবেকার ভুলে যাওয়া স্নেহ
উপাসনা ভুলে যাই আমি।

রক্তের গন্ধ আসে
আসে প্রেম অভিমানী ক্ষুধা।
আমার পাঁজরে তীব্র ঘন্টাধ্বনি
সাড়া দাও, সাড়া দাও
বিরহী হিয়া…

 

২.

বিছানায় পড়ে থাকে শোক।
আমি শোক রেখে উঠে যাই,
অনায়াস গতি
বন্ধ দরজায় ঝোলানো থাকে
কবেকার প্রতিশ্রুতি।
পলায়ন মিশে থাকে প্রতি পদে,
ফিরি না।
ফিরি না শোকের কাছে।

তুমি এত শোক নিয়ে কেন
অবেলায় এলে?

 

৩.

যে পথে হেঁটে গেছি একবার
তাতে মাখা থাকে জন্মদাগ।
প্রেম বলে বেঁধে রেখেছিলাম,
মুক্তি আমার স্তনসন্ধিতে
কলঙ্ক হয়ে জ্বলে উঠল
এবার সে পথ ভুলে যাব।
পথ ভুলে যাবে ঠিকানার মনস্তাপ।

 

৪.

জড়ো করে এনেছি দুঃখ।
আমি বড় বেদনাময়ী,
হেলায় জয় করি প্রেম।
বিশ্বাসে সিঁদুর মেলায়
শহরে ছোটে সাইরেন।
আমার সিঁথিতে শুয়ে থাকে
অবিশ্বাসী স্নেহসুধা,
তুমি এত দূরে বলে প্রেম
শহর ব্যারিকেড বুঝে নেয়।

 

৫.

শুধু কটা দিন ভালবাসব বলে
আমি কত রাত জেগে থাকি।
তোমার চোখে কবেকার ছায়া,
ধূসর বিকেল জানে।
এ সম্মোহনী সন্তাপ শুষে নেব জানি
তারপর ডুবে যাব ফের।

 

৬.

আমি তো শিকড় খুঁজি না এখন।
বুকভরা ঝরা পাতা বয়ে
আমি শেষ পৃষ্ঠায় গন্তব্য লিখে যাই
কেউ ফেরায় না আমায়,
তুমি খালি মধ্যরাত জাগিয়ে রাখো।

সমব্যথী।

 

About চার নম্বর প্ল্যাটফর্ম 4658 Articles
ইন্টারনেটের নতুন কাগজ

Be the first to comment

আপনার মতামত...