গোওওওওওল…

সৌমিক দাশগুপ্ত

কলকাতা ফুটবলের মহাষষ্ঠীর ঢাকে কাঠি পড়েছে কিছুদিন আগে। সেই ১৮৯৮ সালে শুরু হওয়া লীগ এবার ১১৯ বছরে পা দিল, এবং বলা বাহুল্য, এটাই এই গ্রহের প্রাচীনতম ফুটবল লীগ।

ভাবলেই অবাক আগে, ভারতের মতো একটা দেশ, ফুটবল মানচিত্রে নেহাতই আণুবীক্ষণিক, সেই দেশের একটা ফুটবল লীগ নাকি সারা বিশ্বে প্রাচীনতম। অবশ্য ডুরান্ড কাপও বিশ্বে দ্বিতীয় প্রাচীন ফুটবল প্রতিযোগিতা ছিল। তা, তার তো এখন বিলুপ্তপ্রায় দশা।

বিলুপ্তপ্রায় তো বাকি প্রতিযোগিতাগুলোও। রোভার্স, ডিসিএম বন্ধ। আইএফএ শীল্ড জুনিয়র টুর্নামেন্টে পরিণত। তুলনায় নবীন ফেডারেশন কাপও লালবাতি জ্বেলেছে। আর শুধু তাই নয়, দেশের একমাত্র কুলীন টুর্নামেন্ট আই লীগও প্রায় বিলুপ্তির পথে।

এখন দেশের ফুটবল বাজারকে নিয়ন্ত্রণ করছে কর্পোরেট সংস্থাগুলো, বিশেষ করে রিলায়েন্স। এক সময় পাজামা ক্রিকেট চালু করেছিলেন কেরি প্যাকার। সেই ঢঙে ভারতে শুরু হয় আইপিএল। কিন্তু যেহেতু ভারত ক্রিকেট বিশ্বে সর্বোচ্চ শক্তিধর দেশ, তাই আইপিএল জন্মলগ্নেই হিট।

কিন্তু আই এস এল? ভারতের জনতা তো ততটা ফুটবলপ্রেমী নয়। আমরা বাঙালিরা ফুটবলে বাঁচি মরি, কিন্তু অন্যত্র? দেশীয় ফুটবল কতটা আকর্ষণীয়? তাই বিশ্ব ফুটবলের তড়কা লাগিয়ে ভারতের জনগণমনে ফুটবলপ্রেম জাগরিত করার চেষ্টা শুরু হল। কিছু প্রাক্তন বিশ্বমানের খেলোয়াড় এলেন। খেলার মান যে আহামরি তেমন নয়, তাও নতুন আঙ্গিকে ঝাঁ চকচকে রূপে ফিরে এল ফুটবল। তার সাথে এল দারুণ কভারেজ, অসাধারণ বিপণন, সব মিলিয়ে জমজমাট ব্যাপার।

ঠিক সেখানেই ফারাকটা চোখে পড়তে লাগল বড্ড বেশি করে। কোথায় আমাদের আই লীগের চুড়ান্ত আনপ্রফেশন্যাল পরিকাঠামো। ক্লাবগুলোর হতশ্রী দশা। আর কোথায় কোটি কোটি টাকার আইএসএল। আর আই লীগের যদি এই হাল হয়, তাহলে কলকাতা লীগের কী অবস্থা, সহজেই অনুমেয়। তাই যখন লীগ মার্জ করে যাবার কথা ওঠে, আইএসএল এর দলের মালিক সহজেই বলতে পারেন, কলকাতার একটাই দল। বাকি শতাব্দী প্রাচীন দলগুলোকে এক কথায় নস্যাৎ করে দিতে পারেন। কিছু করার নেই। যুগের সাথে তাল না মেলালে হারিয়ে যেতেই হয়।

তাহলে কী পড়ে রইল?

সমর্থক। একমাত্র আশা, এই প্রাচীনতম টুর্নামেণ্টকে যারা বাঁচিয়ে রাখতে পারে। জল কাদা উপেক্ষা করা সেই সব হাজার হাজার সমর্থক, যাদের কোনও জৌলুসই টলাতে পারে না। প্রিয় দলের একটা জয় যাদের কষ্ট ভুলিয়ে দেয়। জীবনের হাজার বঞ্চনা, অপমান, হেরে যাওয়াকে এক তুড়িতে উড়িয়ে যারা গ্যালারীতে চিৎকার করে ওঠে…..

গোওওওওওওওওওল!!!

About চার নম্বর প্ল্যাটফর্ম 3608 Articles
ইন্টারনেটের নতুন কাগজ

Be the first to comment

আপনার মতামত...