আবার এক টাকু-ফাকু সংলাপ

অশোক মুখোপাধ্যায়

 

টাকু: হাঁ রে ফাকু, তু আজ আম দরবার মেঁ অত হাসছিলি কিউঁ?

ফাকু: ন সমঝা? হা হা হা হা হা…

টাকু: ফির হাসছিস? বাত কেয়া হ্যায় তেরি?

ফাকু: এ ভি ন সমঝা? হা হা হা হা হা…

টাকু: না, সত্যি করে বলছি, সমঝতে পারছি না। কুছ তো বোল।

ফাকু: বোলেগা বোলেগা। জরুর বলব, হা হা হা হা হা….

টাকু: আচ্ছা ফাকুভাই, আজ কেউ তোকে কাতুকুতু দিয়েছে নাকি?

ফাকু: আরে না ইয়ার। ইন্ডিয়া কে বারে মেঁ হাঁসি আ রহা। হা হা হা হা হা…

টাকু: ইন্ডিয়া কে বারে মেঁ কা মতলব? আজ তো মণিপুর কো লে কে বাত হোনি থি। অওর তার পরে অনাস্থা আনবে।

ফাকু: হাঁ হাঁ, আমিও তো ওহি বলছি। আজ জো হ্যায় মণিপুর, অগলে কল ওহি হোগা ইন্ডিয়া। মতলব দোনো ইন্ডিয়া।

টাকু: দো ইন্ডিয়া?

ফাকু: হাঁ তো। এক হ্যায় উয়হ ইন্ডিয়া যেখানে আমরা রাজ করছি। মতলব, পদ্‌মরাজ চলছে। দুসরা হ্যায়, পাণ্ডবলোগ যে মোর্চা বানিয়েছে, ও ইন্ডিয়া।

টাকু: তো, তার কী হবে? হাসছিস কেন?

ফাকু: ফির ভি ন সমঝা? আভি ভি দিমাগ মেঁ পঁহুচা নহি? হা হা হা হা হা…

টাকু: না, এখনও বুঝতে পারছি না। হাঁসি ছোড় কর তু হমাকে জরা সমঝা দে।

ফাকু: হা হা হা হা হা… আমি কহ রহা হুঁ, উয়হ দোনো ইন্ডিয়া জ্বল জায়েঙ্গে। বিলকুল মণিপুর জ্যায়সা। ধীরে ধীরে। তু বুঝে নে। কী করতে হবে। কদম কদম সে।

টাকু: হাঁ, অব কুছ বুঝ গয়া। আগ হমাদের লড়কালোগ বিখরে দে রহে হ্যাঁয়। উত্তরকাশীতে দিয়েছে। এখন গুরগাঁও মে খেলছে। এর পর কর্নাটক হয়ে মুম্বাই মেঁ… ফির বঙ্গাল মেঁ ভি।

ফাকু: অব তু মেরা হসনা বন্দ্‌ কর দিয়ে হো। বঙ্গাল কি বাত ন বোল। অ্যাদ্দিন যাচ্ছিস উধার। কুছ ভি কর নহি পায়া। যে কটা ঘাসফুল আগে পাকড়েছিলাম সব লওট চলে গেল। দেহাতি চুনাব মেঁ ইজ্জত পুরা লুটিয়ে দিলি। এক ছোটা সা ইয়হ ভি ফঁসাতে পারলি না। সারে নিকম্মে লোগ।

টাকু: হাঁ তেরি ইয়ে বাতেঁ সহি হ্যাঁয়। লেকিন ওহাঁ খেলনা বহোত মুশকিল হ্যাঁয়। এক বঙ্গাল কবি নে শ্যায়র লিখা থা, বঙ্গাল কি মিট্টি দুর্জয় ঘান্‌টি সমঝ লে দুর্ব্‌রিত্ত। বাত পুরি সহি লিখি।

ফাকু: হাঁ? হম দুর্ব্‌রিত্ত হ্যাঁয়? তু ভি মান লিয়ে? হা হা হা হা হা…

টাকু: আরে ছোড় দে ইয়ার ও বাত কি বাত। মতলব, বঙ্গাল মেঁ কমল কো গছানো বেশ কঠিন আছে। কিতনে সওয়াল পুছনে লাগতা হ্যায়। এনআরসি বোল বোল কে আমাদের হাল খুব বুরা হয়ে গেছে দোস্ত।

ফাকু: হাঁ, আসাম কা চাল বঙ্গাল মেঁ লিয়ে যাওয়াটা আমাদের ভারি গলত হয়ে গেছে। এটা তুইও বুঝিসনি, আমিও সমঝা নহি থি। কুছ দের হো গয়ি সমঝনে মেঁ। কিন্তু মরাম্মত করবি তো?

টাকু: হাঁ করব, জরুর করব। কিন্তু হমাকে এক বাত তু বোল, মণিপুর কি তরহ ভারত কো হম জ্বালিয়ে পুড়িয়ে খাক মেঁ মিলিয়ে দেব, ঠিক হ্যায়, বাকি ইন্ডিয়া কে আছে? আর কাকে জ্বালাবি?

ফাকু: ন সমঝা? হা হা হা হা হা… আরে গদ্ধে, বিরুধ পক্স যে জোট বনায়া, উসকো ভি হম চাকনাচুর কর দেঙ্গে। আম দরবারে আজ আমি ও হি খেল কুছ দিখলায়া।

টাকু: হাঁসি কা খেল? উস সে ক্যায়া হোগা? সরে দুনিয়া হমেঁ গালি দিচ্ছে। মণিপুর নিয়ে কিছু করতে পারছি না, আর তুই কিছু বলছিস ভি না। খালি হাসছিস তো হেসেই যাচ্ছিস। উধার সে যে সব খবর নিকাল আয়ি হ্যাঁয় তাতে তেরা হাঁসি একদম বিলকুল গলত কাম হয়েছে। দুনিয়াভর আমরা গালি শুনছি।

ফাকু: সমঝ লে, টাকুভাই, সমঝ লে! মণিপুর হামাদের প্রোডাক্ট, এক পাইলট প্রোজেক্ট। এক এক্সপেরিমেন্ট ভি কহা জা সকতা। ব্যায়জ্ঞানিকোঁ কি তরহ। জো লোগ পরিক্সা করতে হ্যাঁয়, ওয়ে পরিক্সা শেষ হোনে সে পহলে কুচ্ছু বোলতে নহি। পরিণাম ক্যায়া নিকলে দেখো, পর বোলো।

টাকু: লেকিন, এক ম্যাডাম জোরশোর সে বহোত কিছু বলেছে। শুনেছিলি তু?

ফাকু: হা হা হা হা হা… তু মুঝে হাঁসি রোকনে নহি দিবি। আরে লালা, ও ম্যাম কো উনাদের দলই আচ্ছা সে পোঁছে না, দরবার কে বাহার কহিঁ ভি বোলতে পুকারে না, উকে তু ডরাচ্ছিস? হা হা হা হা হা……

টাকু: ফির হাসছিস? হাঁসি কি বাত নহি। খুব তেজি ডায়ালগ ডালি থি আজ দরবার মেঁ।

ফাকু: ডালনে দে, ডালনে দে, ইয়ার। বিরগেড মেঁ উও লোগোঁ নে জো সভা কিয়া একুশে জুলাই, কিতনে লোগ কিতনা কুছ বোলা, লেকিন উস লেডি কো দেখা মঞ্চ পে? সম্‌তা বহেনজি অপনি ভাষণবাজি কা পরচার গিরাবে ভাবছিস তুই? হা হা হা হা হা…

টাকু: মতলব, তুই বলছিস, ওকে অত পাত্তা না দেনে সে ভি চলেগা?

ফাকু: চলবে না আবার? হা হা হা হা হা….

টাকু: ফির হাসছিস তু? এখন বাত কেয়া হ্যায় তেরি?

ফাকু: হা হা হা হা হা… দুনিয়া হামাদের গালি দিচ্ছে কহরহা থা, তো দেনে দে। রাজ করে গা লেকিন গালি নহি খায়েগা— অ্যা্য়সা কভি হয় না। দেখতে হবে আমরা ভোট কে বারে মেঁ সহি কদম উঠা সকতে হ্যাঁয় ইয়া নহি। আমাদের গলাবাজি সে যেমন উন কি অনাস্থা বরবাদ কর দিয়া, সেইভাবেই হরিয়ানা কে আগ কে দোয়ারা মণিপুর কে আগ কি বাত লোগোঁ কো ভুলওয়া দেঙ্গে। অওর মুম্বাই কে আগ সে হরিয়ানা কা। হামাদের কাজ আগুন লাগানো, আগুন নেভানো নয়। কিন্তু আগুন কি বাত তো থামাতেই হবে। ইস তরহ…

টাকু: মতলব তেরা আচ্ছা হ্যায়। কিন্তু ইস সে তু চওবিস কো পার করতে পারবি?

ফাকু: পারে গা, অগর হামরা পাণ্ডবলোগোঁ কো জ্বলা উলা কে উনাদের মোর্চাকে তোড়ফাড় করে দিতে পারি। ইবিআই এবং সিডি তৈয়ার আছে তো? অওর কেস নেবার জন্য?

টাকু: হাঁ, ও তো নির্মাজি কে হাথোঁ মে হি হ্যায়। লেকিন ইবিআই এবং সিডি বেগড়বাই করছে। বলছে, কোর্ট মেঁ এক ভি কেস আভি তক ঠিকঠাক বনা নহি পায়া, কাজিলোগ বকাবকি করছে। ওরা এরম পলিটিক্যাল কেস লেনে মে আপত্তি জানা রহে হ্যাঁয়।

ফাকু: ও আচ্ছা। উন পর ভি ইউএপিএ লগায়া জা সকতা। একটু বলে দিস, কেমন? হা হা হা হা হা…

টাকু: হাঁ, ঠিক হ্যায়। দেস কো হামরা মণিপুর ইয়া তিহার বানিয়ে দেব। ইয়হ বার্তা সব কো পঁহুচ দেনা হ্যায়। আচ্ছা হামি এখনই ফোন করুঙ্গা।

ফাকু: হাঁ, তোমার কাম তুম করতে চলো। মেরা কাম আমি। হা হা হা হা হা….

টাকু: খুব ভাল স্লোগান বন পায়েগা। মণিপুর ইয়া তিহার। চুন লে উন লোগ। হা হা হা হা হা…

ফাকু: হাঁ, মণিপুর দেখবে? হা হা হা হা হা! তিহার জাওগে? হা হা হা হা হা!! অনাস্থা লাওগে? হা হা হা হা হা……

 

About চার নম্বর প্ল্যাটফর্ম 4673 Articles
ইন্টারনেটের নতুন কাগজ

Be the first to comment

আপনার মতামত...